অনুসন্ধিৎসু চক্র

June 21, 2015 at 1:05 am

২১ জুন কর্কটক্রান্তি দিবস


জুন মাসের ২১ তারিখ উত্তর গোলার্ধের সবচেয়ে বড়দিন। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এই দিনটি কর্কটক্রান্তি (বা অয়ন) দিবস বা Summer Solstice day হিসেবে পালিত হয়। সূর্যের সাপেক্ষে পৃথিবীর অবস্থানের কারণে এদিন আমরা অধিক সময় সূর্যালোক পেয়ে থাকি। পৃথিবী সূর্যের চারিদিকে ঘুরতে ঘুরতে ২১ জুন কক্ষপথে এমন এক অবস্থানে পৌছে যখন সুমেরু সূর্যের দিকে সবচেয়ে বেশি মুখোমুখি হয়ে পড়ে। কর্কট সংত্রান্তিতে সুমেরু বৃত্তের উত্তরে সকল অঞ্চলে ২৪ ঘন্টা সূর্যালোক বিদ্যমান থাকে এবং বিষুব রেখার উত্তরে সকল অঞ্চলে দিনের দৈর্ঘ্য ১২ ঘন্টার বেশি হয়। বছরের এই দীর্ঘতম দিনে এবার ঢাকার আকাশে সূর্য থাকবে মোট ১৩ ঘন্টা ৩৬ মিনিট ২ সেকেন্ড। এই দিনে সূর্য তার উত্তরায়নের সর্বোচ্চ বিন্দুতে অবস্থান করে এবং সর্বোচ্চ উত্তরে উদয় হয় ও সর্বোচ্চ উত্তরে অস্ত যায়। পৃথিবীর কর্কট রেখায় – যা কিনা ২৩.৫ অক্ষাংশ দিয়ে যায় – সূর্যকে ঐদিন মধ্যাহ্নে আকাশের ঠিক মাঝখানে দেখা যায়। বাংলাদেশের মধ্যাংশ দিয়ে কর্কট রেখা যাবার ফলে কর্কটক্রান্তি দিবসে বাংলাদেশের প্রায় সবখানেই মধ্যাহ্নে সূর্য থাকবে মধ্যগগনে প্রায় মাথার উপরে সুবিন্দুতে। ঐ সময়ে কর্কটরেখায় কোনদন্ড বা লাঠি ভূমির সাথে লম্বভাবে রাখলে তার ছায়া তৈরী হবে না। ঢাকার আকাশে ২১শে জুন বেলা ১২ টায় সূর্য মধ্যগগন থেকে মাত্র ০.৩ কৌণিক ডিগ্রী দূরে থাকবে, তাই ঢাকাতেও ঐসময়ে কোন লম্ব দন্ডের ছায়া প্রায় পড়বে না বলা যায়। অনুসন্ধিৎসু চক্র চারপাশের প্রকৃতি ও প্রতিবেশের বিভিন্ন ঘটনার প্রতি সাধারণের মধ্যে আগ্রহ সৃষ্টি এবং এগুলোর বিজ্ঞানসম্মত কারণ অনুসন্ধানে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে প্রতি বছর বাংলাদেশে দিবসটি পালন করে। এবছরও দিবসটি উপলক্ষে অনুসন্ধিৎসু চক্রের বিভিন্ন কর্মসূচী থাকবে। চক্র সবাইকে দিবসটি পালনে আহ্বান জানাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *